Home / হাজীগঞ্জ / নাম তার হাজীগঞ্জ

নাম তার হাজীগঞ্জ

( সার সংক্ষেপ )

চাঁদপুর জেলার এতিহ্যবাহী জনপদোর নাম হাজীগঞ্জ। হযরত মকিমউদ্দিন নামে এক বুজুর্গ অলিয়ে কামেল ইসলাম ধর্ম প্রচারের উদ্দেশ্যে পবিত্র আরব ভূমি হতে সপরিবারে এ অঞ্চলে আগমন করেন। তিনি বাংলা এগার’শ পঁচাত্তর থেকে বার’শ সালের দিকে আসেন। সে সময়ে অন্য এলাকার ন্যায় বর্তমান বড় মসজিদের মাঝখানসহ আশপাশ ছিল হাজা-মজা ডোবা-পুকুর। সেই হাজা-মজা ডোবা পুকুরের উত্তর-পশ্চিম কোণে একটু উঁচু দ্বীপাকৃতি স্থানে তিনি তালপাতা ও খড় দিয়ে আস্তানা তৈরি করে বসবাস করেন। তাঁর ধর্মিয় সাধনা, মধুর ব্যবহার ও সদালাপে অন্যান্য সম্প্রদায়ের লোকজনও হযরত মকিমউদ্দিন (রহ.) কে পরম শ্রদ্ধা ও ভক্তি করতেন। পর্যায়ক্রমে তিনি ইসলাম ধর্মের মাহাত্ম প্রচার করতে থাকেন। মুরিদানের উপস্থিতিসাপেক্ষে চৌধরীঘাটে নামাজ আদায় করতেন। হযরত মকিমউদ্দিন (রহ.) কর্তৃক অত্র এলাকায় ইসলামের আবাদ তথা প্রচার ঘটে। তাঁর প্রভাব ও তার প্রতি শ্রদ্ধার মনোভাব জনমনে এমনি গভীর রেখাপাত করেছিল যে, হযরত মকিমউদ্দিন (রহ.)’র নামানুসারে এ জনপদের নাম হয় -মকিমাবাদ। এভাবে গড়ে উঠে ঐতিহ্যবাহী মকিমাবাদ গ্রাম।

হযরত মকিমউদ্দিন (রহ.)’র বংশের শেষ পুরুষ হাজী মনিরউদ্দিন ওরফে মনাই হাজী (রহ.) সুন্নাতে রাসূল (সা.) হিসেবে মুসলমান ব্যবসায়ী গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে দোকানঘর তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করেন। তিনি বর্তমান মসজিদের পূর্ব-দক্ষিণ গেটের দক্ষিণাংশে, আহমাদ আলী পাটওয়ারী (রহ.)’র মাজারের একটু পূর্ব সীমানায়, সে সময়কার নালা-খালের উত্তর পাড়ে, খড় এবং গোলপাতা দিয়ে একটি একচালা দোকান তৈরি করেন। হাজী সাহেবের দোকানে তিনি নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী চাল, ডাল, তেল, লবন ইত্যাদি সুলভমূল্যে বিক্রয়ের ব্যবস্থা করেন। ‘হাজী দোকান’ হতে লোকজন কেনাকাটা করত। লোকমুখে হাজী দোকানের সুখ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে। মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে চৌধুরীঘাটের পরিবর্তে হোগলাহাটে পবিত্র জুময়ার নামাজসহ নিয়মিত নামাজ আদায় হত। পবিত্র জুময়ার নামাজকে কেন্দ্র করে প্রতি শুক্রবার বাজার বসত। পরবর্তী সময়ে অন্যান্য দিন সকালেও ‘হাট’ বসতে শুরু করে। শুক্রবার জুম’য়া বারের পাশাপাশি পর্যায়ক্রমে নিত্যদিনের বাজারসহ শুক্রবারের সাথে সোমবারও সাপ্তাহিক বাজার চালু হয়। এভাবে মনাই হাজী (রহঃ)’র দোকানের উছিলা ও সুখ্যাতিতে হাজী সাহেবের দোকান, ‘হাজী দোকান’ থেকে ‘হাজীর হাট’, ‘হাজীর বাজার’ হতে বর্তমান এই ‘হাজীগঞ্জ বাজার’-এর পর্যায়ক্রমিক সূচনা ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.